বাড়ি ফিরলেন মিন্নি

0

ডেস্ক রিপোর্ট: বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। আজ মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বরগুনা জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান মিন্নি। এ সময় তাঁর বাবা, চাচা ও আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

মিন্নি জামিনে মুক্তি পাওয়ায় হাইকোর্টের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তাঁর বাবা।

এদিকে মিন্নির মুক্তিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ।

গত ২৯ আগস্ট আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে তাঁর বাবার জিম্মায় স্থায়ী জামিন দেন হাইকোর্ট। জামিনে থাকাকালে তিনি গণমাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথা বলতে পারবেন না বলে শর্ত দেন আদালত। হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত চেয়ে গত রোববার আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। হাইকোর্টের দেওয়া জামিনের রায় গতকাল সোমবার বহাল রাখেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

এরপর মিন্নির আইনজীবী জেড আই খান পান্না এ বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আপিল বিভাগে জামিন বহাল থাকায় মিন্নির কারামুক্তিতে আইনগত কোনো বাধা নেই। আশা করছি, আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শেষে এক-দুই দিনের মধ্যে মিন্নি কারামুক্তি পাবেন। ওই আদেশের পর আজ কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন মিন্নি।

গত ২৬ জুন বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে নিয়ে বরগুনা সরকারি কলেজ থেকে ফেরার পথে নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজীসহ একদল যুবক রিফাত শরীফের ওপর হামলা চালায়। তারা ধারালো দা দিয়ে রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এ সময় মিন্নি হামলাকারীদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন; কিন্তু তাদের থামানো যায়নি। খুনিরা রিফাত শরীফকে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে চলে যায়। পরে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রিফাতের মৃত্যু হয়।

এ হত্যার ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ পরের দিন সকালে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা সদর থানায় মামলা করেন। মিন্নি ছিলেন সেই মামলার এক নম্বর সাক্ষী। পরে ১৬ জুলাই রাতে এ মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ। পরের দিন বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী মিন্নির পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এসবিসি ডেস্ক

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.